Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

হিমসাগর, মোহনভোগ, লক্ষণভোগ আসছে গোপালভোগ ও ফজলি

চলছে রমজান মাস। ইফতারে রোজাদাররা দেশি রসালো ফলে প্রাধান্য দিয়ে থাকে। অন্যদিকে মধুমাস জ্যৈষ্ঠ হওয়ায় বাজারগুলো মৌসুমী ফলে ভরপুর। আম, লিচু, কাঠাল, আনারসসহ নানাবিধ লোভনীয় সুমিষ্ট ফলে নগরীর বাজারগুলো সরগরম। এসবের মধ্যে আমের সরবরাহ সবচেয়ে বেশি। দামও রয়েছে হাতের নাগালে। আর তাই ক্রেতা বিক্রেতারা ভিড় করছেন নগরীর পাইকারি বাজার ফলমণ্ডিতে।
গতকাল সোমবার নগরীর সবচেয়ে বড় পাইকারি ফলের বাজার ফলমণ্ডি ঘুরে দেখা যায় আমে ভরপুর, বেচাকেনায় ব্যস্ত ক্রেতা বিক্রেতার।
টানা বৃষ্টির পর ক্রেতারা বাজারে আসতে শুরু করেছে। তাছাড়া সরবরাহ বেশি থাকায় খুশি ব্যবসায়ীরাও। তারা আশা করছেন, রমজানে ভালো ব্যবসা হবে। ফলমণ্ডির পাইকারি বিক্রেতা মো. মাসুদুল ইসলাম সুপ্রভাতকে জানান, ‘পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকার পরেও টানা বৃষ্টির প্রভাবে গত এক সপ্তাহ বাজারে ক্রেতা ছিল না। বৃষ্টি কমে যাওয়ায় ক্রেতা বাড়তে শুরু করেছে। দামও রয়েছে নাগালে। আবহাওয়া ঠিক থাকলে ভালো ব্যবসা হবে।’
বাজারে প্রতি কেজি লক্ষণভোগ আম ৪০ থেকে ৫০ টাকা, হিমসাগর ৪৫ থেকে ৫০, ল্যাংড়া ৫০ থেকে ৫৫ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও গুটি আম বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫, আটি ৩৫ থেকে ৩৮ টাকা দামে।
ফলমণ্ডিতে আম কিনতে আসা অগ্রণী ব্যাংকের কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান সুপ্রভাতকে জানান, ‘খুচরা বাজার থেকে দাম কম থাকায় সবসময় এখান থেকে ফল কিনি। গতবারের তুলনায় এবার দাম কম দেখছি। তবে বাজারে পুরোপুরিভাবে রাজশাহীর আম এখনো আসেনি।’
এ ব্যাপারে ব্যবসায়ীরা বলছেন, ‘রাজশাহীর গোপালভোগ, লক্ষণভোগসহ নানান জাতের আম আসতে সপ্তাহ খানেক সময় লাগবে। যেগুলো পাওয়া যাচ্ছে তা আসছে খুলনা ও সাতক্ষীরাসহ অন্যান্য অঞ্চল থেকে আসা গুটি, হিমসাগর, মোহনভোগসহ বিভিন্ন জাতের আম।’
সম্প্রতি ফলমণ্ডির ফলে ফরমালিন
পায়নি বলে ঘোষণা দিয়েছেন জেলা প্রশাসনের বাজার মনিটরিং টিম। তবে প্রশাসনের কঠোর নজরদারিতে এবার ফলে ফরমালিন মেশাতে পারেননি বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিক্রেতা বলেন, ‘আগে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী অতিরিক্ত লাভের আশায় কাঁচা ফলে ফরমালিন মিশাতো। কিন’ এবার প্রশাসনের কঠোর নজরদারির কারণে সে সুযোগ আর হচ্ছে না।’
তিনি আরও বলেন, ‘আগে ক্রেতারা ফরমালিনের ভয়ে মৌসুমি ফলগুলো তেমন একটা কিনতে চাইত না। কিন’ ভ্রাম্যমাণ আদালতের টানা অভিযানের ফলে বাজারে কেউ ফরমালিন ব্যবহারের সাহস করছে না। এজন্য ক্রেতারা আশ্বস্ত হয়ে ফল কিনতে আসছেন।’
এ ব্যাপারে জেলা পরিষদের ম্যজিস্ট্রেট সৈয়দ মোরাদ আলী সুপ্রভাতকে জানান, ‘রোববার ফিরিঙ্গীবাজার ও ফলমণ্ডিতে আমে ফরমালিন আছে কিনা পরীক্ষা করে দেখেছি। সেখানে আমরা ফরমালিন পাইনি।’

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found
চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিখ্যাত ‘খিরসাপাত’ জাতের আম জিআই’ (ভৌগোলিক নির্দেশক) পণ্য হিসেবে নিবন্ধিত হতে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে গেজেট জারি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। নিবন্ধন পেলে সুস্বাদু জাতের এই আম ‘চাঁপাইনবাবগঞ্জের খিরসাপাত আম’ নামে বাংলাদেশসহ বিশ্ব বাজারে পরিচিতি লাভ করবে।  এই আমের ...
দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ থেকে চলতি মৌসুমে আম বিদেশে রপ্তানির লক্ষ্যে উপজেলার মাহমুদপুর ফলচাষী সমবায় সমিতি লিমিটেডের বাগানিরা আম বাগানের নিবিড় পরিচর্যা শুরু করেছে । উপজেলা কৃষি অধিপ্তরের সহায়তায় বিষ মুক্ত ও রপ্তানীযোগ্য আম উৎপাদনের জন্য তারা সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ও ফ্রুট ব্যাগিং ...
চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট উপজেলার ভোলাহাট আম ফাউন্ডেশনে উন্নত ও আধুনিক পদ্ধতি ব্যবহার করে আম বাজারজাতকরণের লক্ষ্যে আমচাষীদের নিয়ে পরীক্ষামূলক প্রদর্শনী ও সভা হয়েছে।  বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) সকাল থেকে শুরু হয়ে দিনব্যাপী চলা বিভিন্ন প্রদর্শনীতে এলাকার আমচাষী ও ব্যবসায়ীরা অংশ ...
আম রফতানির মাধ্যমে চাষিদের মুনাফা নিশ্চিত করার উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। এজন্য দেশে বাণিজ্যিকভাবে আমের উৎপাদন, কেমিক্যালমুক্ত পরিচর্যা এবং রফতানি বাড়াতে সরকার বিশেষ পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে। সে লক্ষ্যে গাছে মুকুল আসা থেকে শুরু করে ফল পরিপক্বতা অর্জন, আহরণ, গুদামজাত, পরিবহন এবং ...
বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে আছে বিভিন্ন বয়সী অনেক পুরনো গাছ। এর কোন কোনটি ২০০-৩০০ বছরেরও বেশি বয়সী। আবার কোনটির বয়স তার চেয়েও বেশি। তেমনই ঠাকুরগাঁওয়ের একটি আমগাছের কথা সেদিন জানতে পারলাম ফেসবুকে একজনের পোষ্ট থেকে। একটি আমগাছ যার বয়স নাকি ২০০ বছরেরও ...
অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড কাউন্টির ছোট্ট শহর বাউয়েন। ছোট এ শহরের বড় গর্ব একটা আম। আমটি নিয়ে বাউয়েন শহরের মানুষেরও গর্বের শেষ নেই। লোকে তাদের শহরকে চেনে আমের রাজধানী হিসেবে। ৩৩ ফুট লম্বা, সাত টন ওজনের বিশাল এই আমের পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তোলার লোকের অভাব হয় না। তবে দিনকয়েক আগে ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২