Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

রংপুরে কুকরুল বিলে গড়ে উঠেছে নয়নাভিরাম আম বাগান

দুই বছর আগেও রংপুর নগরীর কুকরুল বিলের দু’ধারের জায়গা পতিত ছিল। কিন্তু সম্প্রতি বিলের দু’ধারে গড়ে উঠেছে সুস্বাদু হাড়িভাঙা আমের বাগান। এ বাগান সৌন্দর্য বৃদ্ধির পাশাপাশি সিটি করপোরেশনের রাজস্ব আদায়ের নতুন খাতে পরিণত হয়েছে।

জানা গেছে, রংপুর সিটি মেয়র শরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টুর উত্সাহ ও প্রেরণায় বছর দুয়েক আগে পার্শ্ববর্তী খটখটিয়া এলাকা থেকে হাড়িভাঙা আমের চারা এনে কুকরুল বিলের দু’ধারে লাগানো হয়।

আম বাগানের তত্ত্বাবধায়ক কৃষক আলেক মিয়া জানান, প্রায় দুই কিলোমিটারব্যাপী বাগানে লাগানো ১ হাজার চারার মধ্যে ৯০০ আম গাছ রয়েছে এখন। এর মধ্যে সূর্যাপুরী জাতের গাছ ১৫টি। বাকিগুলো হাড়িভাঙা আম গাছ। চলতি মৌসুমে তিন শতাধিক গাছে আম ধরেছে। তিনি আরো জানান, প্রতিদিন সৌন্দর্যপিপাসু মানুষের ভিড় বাড়ছে এখানে। অনেকে পরিবার-পরিজন নিয়ে বাগানটি ঘুরে ফিরে গল্পগুজব করে সময় কাটাচ্ছেন। গাছের পরিচর্যায় দিন-রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন আব্দুল আলেক। তিনি আশাবাদী, আগামী বছর পুরো বাগান আমের মৌ মৌ গন্ধে ভরে উঠবে।

এদিকে চলতি বছর অল্প হলেও আগামীতে বাগানের আম বিক্রি করে প্রতি বছর সিটি করপোরেশন কয়েক লক্ষাধিক টাকা আয় করতে পারবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছেন মেয়র শরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু। তিনি বলেন, রংপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান থাকাকালীন এ বিলের ধারেই কয়েক লক্ষাধিক টাকার মূল্যবান গাছ লাগাই। পরে গাছগুলো কেটে সাবাড় করা হয়েছে। আজ গাছগুলো থাকলে সিটি করপোরেশনের কয়েক কোটি টাকা আয় হতো বলে তিনি মনে করেন। এ সময় তিনি আমের বাগানটি নিয়ে নিজের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানান। তিনি বাগানটি আরো সমৃদ্ধ করে একটি নয়নাভিরাম বিনোদন কেন্দ্র তৈরি করার পরিকল্পনার কথা জানান। তখন বাগানটিতে অনেকের কর্মসংস্থানেরও সুযোগ হবে বলে তিনি মনে করেন। তিনি আমের বৃহৎ এ বাগানটি টিকিয়ে রাখতে নগরবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর রংপুর অঞ্চলের উদ্যান বিশেষজ্ঞ খোন্দকার মেসবাহুল ইসলাম বলেন, সুস্বাধু হাড়িভাঙা আমের কারণে রংপুরের নাম দেশের গণ্ডি পেরিয়ে এখন বিদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে। ফলে আমের চাহিদা প্রতি বছরই বৃদ্ধি পাচ্ছে। হাড়িভাঙা আম এ অঞ্চলের কৃষি অর্থনীতিতে বিশেষ ভূমিকা রাখছে দাবি করে তিনি আরো বলেন, নগর পিতা কর্তৃক আমের বাগান তৈরি নিঃসন্দেহে একটি মহৎ উদ্যোগ। পাশাপাশি তিনি এ বাগান রক্ষায় অন্যদেরও এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found
জৈষ্ঠ্য মাসের প্রথম সপ্তাহে জেলার হিমসাগর আম গেল ইউরোপে। আর এর মধ্য দিয়েই আম রপ্তানিতে কৃষি বিভাগের প্রচেষ্টা তৃতীয়বারের মতো সাফল্যের মুখ দেখলো। সোমবার রাতে রপ্তানির প্রথম চালানেই জেলার দেবহাটা উপজেলার ছয়জন চাষী ও সদর উপজেলার তিনজন চাষীর বাগানের হিমসাগর আম পাঠানো হলো ...
ফলের রাজা আম। আর আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জ। দেশের সর্ববৃহত্তর অর্থনৈতিক ও আন্তর্জাতিক বাণিজ্যলয় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা। এ জেলার প্রধান অর্থকরী ফসল আম। বর্তমানে জেলা সবখানে চলছে বাগান পরিচর্যা ও বেচা-কেনা। বর্তমানে জেলার ২৪ হাজার ৪৭০ হেক্টর আম বাগানে ৯০ ভাগ মুকুল এসেছে। ...
দেশেই তৈরি হচ্ছে ফ্রুটব্যাগ বাড়ছে চাহিদাদেশেই তৈরি হচ্ছে ফ্রুটব্যাগ বাড়ছে চাহিদা বিষমুক্ত ও ভালো মানের আম উৎপাদনে ফ্রুটব্যাগ পদ্ধতি বেশ কার্যকর। এত দিন আমদানিনির্ভর হলেও দুই বছর ধরে এটি দেশেই তৈরি হচ্ছে। আর এ ব্যাগ তৈরি হচ্ছে আম উৎপাদনের জন্য প্রসিদ্ধ জেলা ...
আম রফতানির মাধ্যমে চাষিদের মুনাফা নিশ্চিত করার উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। এজন্য দেশে বাণিজ্যিকভাবে আমের উৎপাদন, কেমিক্যালমুক্ত পরিচর্যা এবং রফতানি বাড়াতে সরকার বিশেষ পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে। সে লক্ষ্যে গাছে মুকুল আসা থেকে শুরু করে ফল পরিপক্বতা অর্জন, আহরণ, গুদামজাত, পরিবহন এবং ...
গাছ ফল দেবে, ছায়া দেবে; আরও দেবে নির্মল বাতাস। আশ্রয় নেবে পাখপাখালি, কাঠ বেড়ালি, হরেক রকম গিরগিটি। গাছ থেকে উপকার পাবে মানুষ, পশুপাখি, কীটপতঙ্গ– সবাই। আর এতেই আমি খুশি। ঐতিহাসিক মুজিবনগর আম্রকাননে ছোট ছোট আমগাছের গোড়া পরিচর্যা করার সময় এ কথাগুলো বলেন বৃক্ষ প্রেমিক জহির ...
রীষ্মের এই দিনে অনেকেরই পছন্দ আম।এই আমের আছে আবার বিভিন্ন ধরণের নাম।কত রকমের যে আম আছে এই যেমনঃ ল্যাংড়া,ফজলি,গুটি আম,হিমসাগর,গোপালভোগ,মোহনভোগ,ক্ষীরশাপাত, কাঁচামিঠা কালীভোগ আরও কত কি! কিন্তু এবারে বাজারে এসেছে এক নতুন নামের আর তার নাম 'বঙ্গবন্ধু'। নতুন নামের এই ফলটি দেখা ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২