Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

ট্রাকভর্তি কার্বাইড মেশানো আম জব্দ সাতক্ষীরা শহরে

সাতক্ষীরা শহর থেকে ট্রাকভর্তি কার্বাইড মেশানো ৬ লাখ টাকা মূল্যের ৩শ' মণ আম জব্দ করেছে ডিবি পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার সকালে শহরের ইটাগাছা এলাকা থেকে ওই আমগুলো জব্দ করা হয়।
 
সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক জুলফিকার আলী জানান, সাতক্ষীরার দেবহাটা এলাকা থেকে ট্রাকভর্তি কার্বাইড মেশানো আম আনা হচ্ছে এমন গোপন খবরের ভিত্তিতে সকাল ৯টার দিকে শহরের ইটাগাছা এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এ সময় সেখান থেকে কার্বাইড মেশানো ট্রাকভর্তি ৬ লাখ টাকা মূল্যের ৩শ' মণ আম জব্দ করা হয়। তবে, এ সময় আমের মালিকসহ ট্রাকের চালক ও হেলপার পালিয়ে যাওয়ায় তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি।

তিনি আরো জানান, জব্দকৃত কার্বাইড মেশানো আমগুলো পরে ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে

Comment (0) Hits: 919
 

সাতক্ষীরায় কেমিক্যাল স্প্রে করার সময় ৫০ মণ আম জব্দ

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি /- সাতক্ষীরায় কেমিক্যাল স্প্রে করার সময় ৫০ মণ আম জব্দ করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।
বুধবার দুপুর ৩টার দিকে সাতক্ষীরা পৌরসভার চালতেতলার তপন দাশের গোডাউনে অভিযান চালিয়ে এই আম জব্দ করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন সাতক্ষীরা জেলা কালেক্টরেটের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু তালেব।
ভ্রাম্যমাণ আদাণতের পেশকার জগদীশ বিশ্বাস জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চালতেতলায় অভিযান চালিয়ে কেমিক্যাল স্প্রে করার সময় হাতেনাতে ৫০ মণ গোবিন্দভোগ, হিমসাগর ও ল্যাংড়া আম জব্দ করা হয়েছে। এ সময় দুইজন শ্রমিককে পাওয়া গেলেও আমের মালিককে পাওয়া যায়নি। তাদের মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।
তিনি জানান, পরে আমগুলো গাড়ির চাকায় পিসে বিনষ্ট করা হয়েছে।
কেমিক্যাল ফ্রি আম বাজারজাতকরণে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন ১৫ মে থেকে হিমসাগর ও ২৫ মে থেকে ল্যাংড়া আম পাড়ার সময় নির্ধারণ করে দিয়েছে।

Comment (0) Hits: 967
 

সাতক্ষীরা’য় ৭লক্ষ টাকার আম বিনষ্ট ও ২২ হাজার টাকা জরিমানা

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ভোমরা ইউনিয়নের বৈচনা গ্রামে কার্বাইড দিয়ে পাকানো ৫হাজার ৭০ কেজি (১২৬ মণ) আম বিনষ্ট ও আম ব্যবসায়ীদের কে ২২ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। বিনষ্টকৃত আমের আনুমানিক বাজার মূল্য ৭লক্ষ টাকা।
ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বার্হী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ আবদুল সাদী মঙ্গলবার বিকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ অভিযান পরিচালনা করেন।

সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার ভোমরা ইউনিয়নের বৈচনা গ্রামের আম ব্যবসায়ীরা আমে বিষাক্ত ক্যালসিয়াম কার্বাইড দিয়ে পাকানো আম দুটি ট্রাকযোগে ঢাকার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হবে এমন গোপন সংবাদ পেয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ্ আবদুল সাদী মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন।

এসময় বৈচনা গ্রামের আকবর গাজী’র বাড়ীতে কার্বাইড দিয়ে পাকানো আম উদ্ধার করা হয় এবং তাকে না পাওয়ায় তার স্ত্রী মোহসেন আরাকে অভিযুক্ত করে ২হাজার জরিমানা করা হয়। এছাড়া বৈচনা গ্রামের খইনুদ্দিন গাজীর ছেলে মনিরুল ইসলামকে ১০ হাজার টাকা এবং চৌবাড়িয়া গ্রামের মৃত ওয়াজেদ আলীর ছেলে মফিজুল ইসলামকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং উদ্ধারকৃত কার্বাইড দিয়ে পাকানো ১২৬ মণ আম ও ১ কেজি বিষাক্ত ক্যালসিয়াম কার্বাইড জব্দ করা হয়। পরে জব্দকৃত আম সদর উপজেলা চত্বরে রোলার দিয়ে বিনষ্ট করা হয়।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ্ আবদুল সাদী বলেন, বিষাক্ত কার্বাইড দিয়ে আম পাকানোর অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে অভিযুক্তদের ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৪২ ধারা মোতাবেক আম জব্দ করা হয় এবং রোলার ও ট্রাক দিয়ে বিনষ্ট করে ডিজেল দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

Comment (0) Hits: 973

সাতক্ষীরার সাড়ে ১৪ হাজার হিমসাগর, ন্যাংড়া ও আম্রপালি গাছ

সাতক্ষীরায় উৎপাদিত বিভিন্ন প্রজাতির বিষমুক্ত আম বিদেশে রফতানির জন্য এবার জেলার চার উপজেলায় ১৪ হাজার ৪৫১টি হিমসাগর, ন্যাংড়া ও আম্রপালি গাছ বিশেষভাবে প্রস্তুত করা হচ্ছে। বিদেশে আমের চাহিদা বাড়ায় মৌসুমের শুরুতেই সুন্দর পরিষ্কার দেখে গাছ বাছাই করে তার পরিচর্যা শুরু করা হয়। এসব বাগান থেকে উৎপাদিত ৬শ’ মেট্রিক টন আমের মধ্য থেকে বাছাই করে ২শ’ মেট্রিক টন বিদেশে রফতানি করা যাবে বলে মনে করে কৃষি বিভাগ।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে সাতক্ষীরা জেলায় আমের আবাদ হয়েছে মোট ৩ হাজার ৯৫০ হেক্টর জমিতে। যা গতবারের তুলনায় ৫০ হেক্টর বেশি। আমের উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০ হাজার মেট্রিক টন। যা গতবছরের তুলনায় ১৫ হাজার মেট্রিক টন বেশি।
সূত্র আরো জানায়, গত বছর সাতক্ষীরা জেলা থেকে ২৩ টন হিমসাগর, ন্যাংড়া ও আম্রপালি আম যুক্তরাজ্যের বাজারে রফতানি হলেও এ বছর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২শ’ মেট্রিক টন। এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণে এ বছর কৃষি বিভাগের মাধ্যমে যাচাই করে সুন্দর পরিষ্কার দেখে সদর উপজেলার ১৫০টি, কলারোয়া উপজেলার ১শ’টি, দেবহাটায় ৪০টি ও তালা উপজেলায় ৮৭টিসহ মোট ১০০ হেক্টর জমির ৩৭৭টি আম বাগানের ২২০ জন মালিকের ১৪ হাজার ৪৫১টি হিমসাগর, ন্যাংড়া ও আম্রপালি আম গাছ বিশেষভাবে প্রস্তুত করা হচ্ছে যুক্তরাজ্যের জন্য। আর এসব আম গাছ বিষমুক্ত রাখতে চাষিদের অধিকতর প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। এসব বাগান থেকে চলতি মৌসুমে ৬০০ মেট্রিক টন আম উৎপাদন করা সম্ভব হবে যা থেকে বাছাই করে ২০০ মেট্রিক টন আম বিদেশে রফতানি করা যাবে। এজন্য এ বছর কোয়ারেন্টাইনের এক্সপোর্ট ডিডি, বাংলাদেশ ফ্রুট এন্ড ভেজিটেবল এক্সপোর্টার এসোসিয়েশনের প্রতিনিধি, রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স ইসলাম এন্টারপ্রাইজ ও দীপ ইন্টারন্যাশনালের কর্মকর্তাবৃন্দসহ হার্টেক্স ফাউন্ডেশন প্রতিনিধি দলের সাথে সম্প্রতি সাতক্ষীরার বিভিন্ন আম বাগান পরিদর্শন করেছেন এফএও ফুড সেল প্রোগ্রাম অফিসার বিদেশি নগরিক মাইক ডিলন।
দেশে বর্তমানে আমের নাম বলতেই আগে আসে সাতক্ষীরার নাম। মাটি, আবহাওয়া ও পরিবেশগত কারণে সাতক্ষীরার উৎপাদিত আম অনেক সুস্বাদু হওয়ায় এবং অন্যসব জেলার আগে এ জেলার আম পাকায় এর কদর এবং চাহিদা দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিদেশের বাজারেও বেড়েছে। সাতক্ষীরায় বিভিন্ন জাতের আম চাষ হয়ে থাকে। এর মধ্যে হিমসাগর, ন্যাংড়া, গোবিন্দভোগ, আম্রপালি, মল্লিকা, সিদুর রাঙ্গা, ফজলি, কাঁচামিঠা, বোম্বাইলতা আম বেশি চাষ করা হয়। হিমসাগর আর ন্যাংড়া আমের রাজধানী সাতক্ষীরার মানুষ বহুকাল ধরেই আম চাষে জড়িত। সাতক্ষীরার আম বিদেশে চাহিদা বাড়ায় গতবারের চেয়ে এবার বেশী ব্যবসায়ীরা আসছেন। আম ব্যবসায়ীরা জানান, মুকুলের ওপর ভিত্তি করেই বাগান কেনাবেচা হয়ে থাকে। এজন্য আমগাছ পরিচর্যার সাথে সাথে মুকুল রক্ষায় বিভিন্ন পদ্ধতি ব্যবহারে ব্যস্ত সময় পার করছেন আম চাষিরা। এবার আমের মুকুল বেশি হওয়ায় বাগানের দামও বেশি। তবে যে সব বাগানকে বিদেশে রফতানির জন্য বাছাই করা হয়েছে সে সব বাগান কৃষি বিভাগ সব সময় দেখাশুনা করছেন ও চাষিদের নিয়মিত পরামর্শ দিচ্ছেন। দেশের জন্য আম একটি মৌসুমি ফল হলেও সাতক্ষীরা জেলায় বর্তমানে এটি অর্থকরী ফসল হিসেবে পরিণত হয়েছে।
আম চাষিদের দাবি, সরকার যদি আম পাড়া বা সংরক্ষণের উপর বিশেষ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে তাহলে আমাদের আমে দাগ হবে না। ডিমের খাচিরমত বিশেষ কায়দায় আম বাজারজাত করা গেলে ব্যবসায়ীরা লাভবান হবে বিদেশেও এর চাহিদা আরো বাড়বে।
সাতক্ষীরা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ কাজী আব্দুল মান্নান জানান, চলতি মৌসুম আমের মুকুলের জন্য অনুকূল আবহাওয়া বিরাজ করছে। জেলার প্রতিটি বাগানে গাছে পর্যাপ্ত মুকুল হয়েছে। যদি কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না দেখা দেয় তাহলে সাতক্ষীরায় এবার আমের বাম্পার ফলন হবে। আম গাছ বিষমুক্ত রাখতে চাষিদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। এছাড়া আমের ফলন বৃদ্ধিসহ সার্বিক বিষয়ে তদারকি করছে কৃষি অফিস।

Comment (0) Hits: 959
চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিখ্যাত ‘খিরসাপাত’ জাতের আম জিআই’ (ভৌগোলিক নির্দেশক) পণ্য হিসেবে নিবন্ধিত হতে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে গেজেট জারি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। নিবন্ধন পেলে সুস্বাদু জাতের এই আম ‘চাঁপাইনবাবগঞ্জের খিরসাপাত আম’ নামে বাংলাদেশসহ বিশ্ব বাজারে পরিচিতি লাভ করবে।  এই আমের ...
রপ্তানি যোগ্য আম উৎপাদন করেও রপ্তানি করতে না পেরে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীরা। কৃষি অধিদপ্তরের কোয়ারেন্টাইন উইংয়ের সাথে স্থানীয় কৃষি বিভাগের সমন্বয়হীনতার কারণে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে মে করেন বাগান মালিক ও চাষিরা। অন্যদিকে জেলার ...
দেশেই তৈরি হচ্ছে ফ্রুটব্যাগ বাড়ছে চাহিদাদেশেই তৈরি হচ্ছে ফ্রুটব্যাগ বাড়ছে চাহিদা বিষমুক্ত ও ভালো মানের আম উৎপাদনে ফ্রুটব্যাগ পদ্ধতি বেশ কার্যকর। এত দিন আমদানিনির্ভর হলেও দুই বছর ধরে এটি দেশেই তৈরি হচ্ছে। আর এ ব্যাগ তৈরি হচ্ছে আম উৎপাদনের জন্য প্রসিদ্ধ জেলা ...
বাড়ছে আমের চাষ। মানসম্পন্ন আম ফলাতে তাই দরকার আধুনিক উত্পাদন কৌশল। আম চাষিদের জানা দরকার কীভাবে জমি নির্বাচন, রোপণ দূরত্ব, গর্ত তৈরি ও সার প্রয়োগ, রোপণ প্রণালী, রোপণের সময়, জাত নির্বাচন, চারা নির্বাচন, চারা রোপণ ও চারার পরিচর্যা করতে হয়। মাটি ও আবহাওয়ার কারণে দেশের ...
মৌসুমি ফল দিয়ে কর্তা ব্যক্তিদের খুশি করে স্বার্থ উদ্ধারের পদ্ধতি অনেক দিনের। বর্তমানে এই খুশি বিষয়টি আদায় করতে নগদ অর্থ খরচ করতে হলেও ফল থেরাপি ধরে রেখেছে অনেকেই। এর একটি হল মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের জন্য নিয়মিত ...
আম গাছ কে দেশের জাতীয় গাছ হিসেবে ঘোষনা দাওয়া হয়েছে। আর এরই প্রতিবাদে কিছুদিন আগে এক সম্মেলন হয়ে গেলো যেখানে বলা হয়েছে :-"৮৫% মমিন মুসলমানের দেশ বাংলাদেশ। ঈমান আকিদায় দুইন্নার কুন দেশেরথে পিছায় আছি?? আপনেরাই বলেন। অথচ জালিম সরকার ভারতের লগে ষড়যন্ত কইরা আমাগো ঈমানের লুঙ্গি ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২