Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

হাড়িভাঙা আমের বাম্পার ফলন

১৮ মে ১৫।। হাড়িভাঙা জাতের আমের বাম্পার ফলন হয়েছে। আঁশবিহীন, মাংসল ও সুস্বাদু হওয়ায় বাজারে এ আমের চাহিদাও প্রচুর। মৌসুমের শুরুতেই শহরের পাইকারি ব্যবসায়ীরা আম চাষিদের কাছ থেকে স্বল্পমূল্যে আম বাগান কিনে নিচ্ছে। এতে আম চাষিদের চেয়ে লাভবান হচ্ছেন পাইকারি ব্যবসায়ীরা।

চলতি মৌসুমে রংপুর জেলায় ৬ হাজারের বেশি আম চাষি ও বাগান মালিক ৫ হাজার ৭০০ হেক্টর জমিতে আম চাষ করেছে। এপ্রিল মাসের শুরু থেকে প্রচুর বৃষ্টিপাত হওয়ায় চলতি মৌসুমে আমের অধিক ফলনের আশাবাদী কৃষকরা।

রংপুরের গ্রামে-গঞ্জে বিভিন্ন জাতের আমের চাষ হলেও সুমিষ্ট স্বাদের জন্য হাড়িভাঙা আমের কদর অনেক বেশি। এ জাতের আমের অধিক চাষ হয়ে থাকে রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার পদাগঞ্জ গ্রামে। ওই গ্রামের আম চাষি শাহাজুল, হামিদুল, আনিছারসহ অনেকে জানান, এবারে আমের ফলন ভালো হলেও অধিকাংশ আম চাষি সুফল পা”েছন না।

কারণ হিসেবে তারা বলেন, শহরের পাইকারি ব্যবসায়ীরা জমি থেকে অগ্রিম চুক্তিভিত্তিক আম ক্রয় করছেন তারা বাড়িতে গিয়ে। এমনিভাবে শতাধিক পাইকারি আম ব্যবসায়ী নিজেদের ইচ্ছেমতো আমের মূল্য নির্ধারণ করে আগাম টাকা দিচ্ছেন। এভাবে হাজার হাজার হেক্টর জমির উৎপাদিত আম চলে যা”েছ পাইকারি ব্যবসায়ীদের দখলে। উৎপাদিত আম দীর্ঘদিন গাছে রাখতে পাইকাররা এক ধরনের ওষুধ স্প্রে করছেন আমগাছে। ফলে মৌসুমের শেষ দিকে এসব আম অধিকমূল্যে বিক্রি করেন পাইকাররা। এতে স্বল্প আয়ের মানুষের নাগালের বাইরে চলে যায় হাড়িভাঙা আম ক্রয়ের ক্ষমতা।

রংপুরের স্থানীয় বাজারে চলতি মৌসুমে প্রতি কেজি আমের দাম ৬০-৭০ টাকা হতে পারে। তবে কখনো কখনো বা মৌসুমের শেষ দিকে এই দাম ৩০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে।

জেলা কৃষি অফিস সূত্র জানায়, গত বছর জেলায় আম উৎপাদন হয়েছিল ২১ হাজার টন। যার মূল্য ছিল ১৪৭ কোটি টাকা। এবারে চাষ বৃদ্ধি পাওয়ায় ফলনের লক্ষ্যমাত্রা ২২ হাজার টন নির্ধারণ করা হয়েছে।

সূত্র আরো জানায়, ইতোমধ্যেই বাজারে বিভিন্ন জাতের আম পাওয়া যা”েছ। তবে জুনের মাঝামাঝি থেকে জুলাইয়ের শেষ পর্যন্ত পাওয়া যাবে হাড়িভাঙা আম। রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের (ডিএই) উপপরিচালক জুলফিকার হায়দার এবং গঙ্গাচড়া উপজেলা কৃষি অফিসার আবদুুল্লাহ আল মামুন জানান, সারা দেশে হাড়িভাঙা আমের চাহিদা ব্যাপক। তাই আধুনিক প্রযুক্তির সংমিশ্রনে ব্যাপক গবেষণার মাধ্যমে এ আমের উৎপাদন আরো বাড়ানো সম্ভব।

রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের (ডিএই) উদ্যান উপপরিচালক ও বিশেষজ্ঞ খন্দকার মেজবাহুল ইসলাম বলেন, এপ্রিল থেকে নিয়মিত বৃষ্টিপাত হচ্ছে, যা আমের অধিক ফলনে খুবই সহায়ক। আগামী দুমাস পর্যন্ত এ ধরনের অনুক‚ল আবহাওয়া বিরাজ করলে আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে।

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found
চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিখ্যাত ‘খিরসাপাত’ জাতের আম জিআই’ (ভৌগোলিক নির্দেশক) পণ্য হিসেবে নিবন্ধিত হতে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে গেজেট জারি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। নিবন্ধন পেলে সুস্বাদু জাতের এই আম ‘চাঁপাইনবাবগঞ্জের খিরসাপাত আম’ নামে বাংলাদেশসহ বিশ্ব বাজারে পরিচিতি লাভ করবে।  এই আমের ...
ফলের রাজা আম।বাংলাদেশ এবং ভারত এ যে প্রজাতির আম চাষ হয় তার বৈজ্ঞানিক নাম Mangifera indica. এটি Anacardiaceae পরিবার এর সদস্য। তবে পৃথিবীতে প্রায় ৩৫ প্রজাতির আম আছে। আমের বিভিন্ন জাতের মাঝে আমরা মূলত ফজলি, ল্যাংড়া, গোপালভোগ, ক্ষিরসাপাত/হীমসাগর,  আম্রপালি, মল্লিকা,আড়া ...
বাজারে আম সহ মাছ, ফল, সবজিসহ বিভিন্ন খাদ্য সংরক্ষণে যখন হরহামেশাই ব্যবহার হচ্ছে মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান ফরমালিন, ঠিক তখনই এর বিকল্প আবিষ্কার করেছেন বাংলাদেশের বিজ্ঞানী ড. মোবারক আহম্মদ খান। বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের প্রধান এই বৈজ্ঞানিক ...
বাড়ছে আমের চাষ। মানসম্পন্ন আম ফলাতে তাই দরকার আধুনিক উত্পাদন কৌশল। আম চাষিদের জানা দরকার কীভাবে জমি নির্বাচন, রোপণ দূরত্ব, গর্ত তৈরি ও সার প্রয়োগ, রোপণ প্রণালী, রোপণের সময়, জাত নির্বাচন, চারা নির্বাচন, চারা রোপণ ও চারার পরিচর্যা করতে হয়। মাটি ও আবহাওয়ার কারণে দেশের ...
ফলের রাজা আম এ কথাটি যথাযথই বাস্তব। ফলের মধ্যে এক আমেরই আছে বাহারি জাত ও বিভিন্ন স্বাদ। মুখরোচক ফলের মধ্যে অামের তুলনা নেই। মৌসুমি ফল হলেও, এর স্থায়িত্ব বছরের প্রায় তিন থেকে চারমাস। এছাড়া ফ্রিজিং করে রাখাও যায়। স্বাদ নষ্ট হয় না। আমের ফলন ভালো হয় রাজশাহী অঞ্চলে। ...
আম গাছ কে দেশের জাতীয় গাছ হিসেবে ঘোষনা দাওয়া হয়েছে। আর এরই প্রতিবাদে কিছুদিন আগে এক সম্মেলন হয়ে গেলো যেখানে বলা হয়েছে :-"৮৫% মমিন মুসলমানের দেশ বাংলাদেশ। ঈমান আকিদায় দুইন্নার কুন দেশেরথে পিছায় আছি?? আপনেরাই বলেন। অথচ জালিম সরকার ভারতের লগে ষড়যন্ত কইরা আমাগো ঈমানের লুঙ্গি ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২