Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

আম পাকাতে কার্বাইডের পরিবর্তে স্প্রে!

সাতক্ষীরায় আম পাকানোর জন্য কার্বাইড বা যে কোনো ধরনের রাসায়নিক ব্যবহার বন্ধে তৎপর ছিল প্রশাসন। আমে যেন কোনো বিষাক্ত রাসায়নিক মেশানো না হয়- সে বিষয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আম ব্যবসায়ীদের নিয়ে মতবিনিময় সভাও করা হয়। তবে প্রশাসনের কড়া বার্তাকে টাকার বিনিময়ে সহজ করে নিয়েছেন আম ব্যবসায়ীরা!

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আম ব্যবসায়ী বলেন, শুরু থেকেই আমে যেন বিষাক্ত কোনো কিছু মেশানো না হয় সে ব্যাপারে প্রশাসনের তরফ থেকে কড়া নজরদারি ছিল। তবে সব আম গাছে পাকানো সম্ভব নয়। এজন্য প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করে আমরা স্প্রে (ক্ষতিকর রাসায়নিক) ব্যবহার করছি। আমাদের উপজেলায় চারশ আম ব্যবসায়ী রয়েছেন। সবাই মিলে আলোচনার মাধ্যমে গত ২৫ বৈশাখ থেকে এক যোগে আম ভাঙা শুরু করেছি। তবে আম পাকানোর জন্য আমরা কার্বাইড (ক্ষতিকর রাসায়নিক) ব্যবহার করছি না।

আলোচনার সময় ঘুষ দেয়া হয়েছে কি না জানতে চাইলে ওই ব্যবসায়ী বলেন, বুঝে নেন। ঘুষ ছাড়া কী এখন দুনিয়া চলে। এটা শুধু এক উপজেলায় নয়। জেলার সাত উপজেলাতেই হচ্ছে।

এ বিষয়ে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর খামারবাড়ির উপ-পরিচালক কাজী আব্দুল মান্নান বলেন, আমে ক্ষতিকারণ কার্বাইড মেশানোর ব্যাপারে প্রশাসনের কড়া নজরদারি রয়েছে। তাছাড়া আমে যেন কোনো বিষাক্ত রাসায়নিক মেশানো না হয়- সে বিষয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আম ব্যবসায়ীদের নিয়ে মতবিনিময় সভাও করা হয়েছে। ইতোমধ্যে কিছু ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে কার্বাইড মিশ্রিত আম ধ্বংস করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আম ব্যবসায়ীরা কার্বাইডের পরিবর্তে স্প্রে ব্যবহার করছেন- এটি আমার জানা নেই। কী স্প্রে করছেন সেটিও জানি না। ঘুষ নিয়ে আমে স্প্রে ব্যবহারের অনুমতির বিষয়টিও তার জানা নেই বলে তিনি জানান।

কাজী আব্দুল মান্নান বলেন, এ বছর সাতক্ষীরায় ৫শ মেট্রিক টন আম উৎপন্ন হয়েছে। এর মধ্যে কিছু বিদেশে ও দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হবে। আর কিছু স্থানীয় বাজারে যাবে।

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found
জৈষ্ঠ্য মাসের প্রথম সপ্তাহে জেলার হিমসাগর আম গেল ইউরোপে। আর এর মধ্য দিয়েই আম রপ্তানিতে কৃষি বিভাগের প্রচেষ্টা তৃতীয়বারের মতো সাফল্যের মুখ দেখলো। সোমবার রাতে রপ্তানির প্রথম চালানেই জেলার দেবহাটা উপজেলার ছয়জন চাষী ও সদর উপজেলার তিনজন চাষীর বাগানের হিমসাগর আম পাঠানো হলো ...
ফলের রাজা আম।বাংলাদেশ এবং ভারত এ যে প্রজাতির আম চাষ হয় তার বৈজ্ঞানিক নাম Mangifera indica. এটি Anacardiaceae পরিবার এর সদস্য। তবে পৃথিবীতে প্রায় ৩৫ প্রজাতির আম আছে। আমের বিভিন্ন জাতের মাঝে আমরা মূলত ফজলি, ল্যাংড়া, গোপালভোগ, ক্ষিরসাপাত/হীমসাগর,  আম্রপালি, মল্লিকা,আড়া ...
দেশেই তৈরি হচ্ছে ফ্রুটব্যাগ বাড়ছে চাহিদাদেশেই তৈরি হচ্ছে ফ্রুটব্যাগ বাড়ছে চাহিদা বিষমুক্ত ও ভালো মানের আম উৎপাদনে ফ্রুটব্যাগ পদ্ধতি বেশ কার্যকর। এত দিন আমদানিনির্ভর হলেও দুই বছর ধরে এটি দেশেই তৈরি হচ্ছে। আর এ ব্যাগ তৈরি হচ্ছে আম উৎপাদনের জন্য প্রসিদ্ধ জেলা ...
সারা দেশে যখন ‘ফরমালিন’ বিষযুক্ত আমসহ সব ধরনের ফল নিয়ে মানুষের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে, তখন বরগুনা জেলার অনেক সচেতন মানুষ বিষমুক্ত ফল খাওয়ার আশায় ভিড় জমাচ্ছেন মজিদ বিশ্বাসের আমের বাগানে। জেলার আমতলী উপজেলার আঠারগাছিয়া ইউনিয়নে শাখারিয়া-গোলবুনিয়া গ্রামে মজিদ বিশ্বাসের ২ একরের ...
ফলের রাজা আম এ কথাটি যথাযথই বাস্তব। ফলের মধ্যে এক আমেরই আছে বাহারি জাত ও বিভিন্ন স্বাদ। মুখরোচক ফলের মধ্যে অামের তুলনা নেই। মৌসুমি ফল হলেও, এর স্থায়িত্ব বছরের প্রায় তিন থেকে চারমাস। এছাড়া ফ্রিজিং করে রাখাও যায়। স্বাদ নষ্ট হয় না। আমের ফলন ভালো হয় রাজশাহী অঞ্চলে। ...
আম গাছ কে দেশের জাতীয় গাছ হিসেবে ঘোষনা দাওয়া হয়েছে। আর এরই প্রতিবাদে কিছুদিন আগে এক সম্মেলন হয়ে গেলো যেখানে বলা হয়েছে :-"৮৫% মমিন মুসলমানের দেশ বাংলাদেশ। ঈমান আকিদায় দুইন্নার কুন দেশেরথে পিছায় আছি?? আপনেরাই বলেন। অথচ জালিম সরকার ভারতের লগে ষড়যন্ত কইরা আমাগো ঈমানের লুঙ্গি ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২