Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

রাজধানীর ৯৪ শতাংশ আমে ফরমালিন

নাগরিক সংগঠন পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা) পরীক্ষা করে দেখেছে, ঢাকার বাজারের ৯৪ শতাংশ আমে ফরমালিন রয়েছে। আর শতভাগ লিচু ও জামে ব্যবহূত হচ্ছে এই রাসায়নিক।

রাজধানীর বিভিন্ন বাজার থেকে সপ্তাহব্যাপী ফল কিনে ফরমালিন পরীক্ষা করেছে পবা। ওই পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে তৈরি প্রতিবেদন গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদ সম্মেলনে প্রকাশ করা হয়। সাংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, মৌসুমি ফলে ফরমালিনের ব্যবহার পরিস্থিতি জানার জন্য ১ থেকে ১০ জুন পর্যন্ত আম, লিচু ও জামে ফরমালিনের উপস্থিতি পরীক্ষা করা হয়। রাজধানীর ২৬টি এলাকা থেকে আমের ৯৬টি, লিচুর ছয়টি ও জামের তিনটি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। ফল কেনার পর পবা কার্যালয়ে এবং কিছু দোকানে তাৎক্ষণিকভাবে ফরমালিন মাপার যন্ত্র দিয়ে তা পরীক্ষা করা হয়।

পরীক্ষায় দেখা যায় হিমসাগর, ল্যাংড়া, আম্রপলি, চোষা, গোপালভোগ, লক্ষণভোগ, রানীভোগ আমের ৯৬টি নুমনার মধ্যে ৯০টিতে ফরমালিন পাওয়া যায়। তবে সব আমে ফরমালিনের পরিমাণ সমান নয়। আমের ছয়টি নমুনায় ফরমালিন পাওয়া যায়নি। লিচু ও জামের সব নমুনায় ফরমালিন পাওয়া গেছে। এ ক্ষেত্রেও ফরমালিনের পরিমাণে তারতম্য আছে।

পবা বলছে, মালটা, আপেল, আঙুর, কমলায়ও ফরমালিন দেওয়া হয়। সবজিতেও ফরমালিন দেওয়া হচ্ছে। এর মধ্যে টমেটোতে সবচেয়ে বেশি।

পবা বলছে, বাজারে মৌসুমি ফলের সরবরাহ বেশ। তবে এগুলো রাসায়নিক তথা ফরমালিনমুক্ত কি না, তা ক্রেতারা নিশ্চিত হতে পারছেন না। ফল পাকাতে ও সংরক্ষণ করতে ব্যবসায়ীরা ফলে ব্যবহার করছেন বিষাক্ত রাসায়নিক। এই রাসায়নিকযুক্ত ফল ও সবজি খাওয়ার কারণে নানা রোগব্যাধি বাড়ছে আশঙ্কাজনকভাবে।

প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করেন পবার সম্পাদক মো. আবদুস সোবহান। এ সময় বক্তব্য দেন পবার সাধারণ সম্পাদক কামাল পাশা চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান প্রমুখ।

পবা বলছে, ফরমালিনের দাম বাড়ার কারণে বৈধ পথে এর আমদানি কমছে। তবে অবৈধ পথে প্রচুর পরিমাণে ফরমালিন দেশে আসছে। আমদানি করা পণ্যে ফরমালিনের উপস্থিতি তদারক করা হচ্ছে না।

করণীয়: পবা বলছে, খাদ্যদ্রব্যে ফরমালিন মেশানোর সঙ্গে জড়িত ব্যক্তি ও ফরমালিনযুক্ত খাদ্য বিক্রয়কারীকে ভ্রাম্যমাণ আদালত দণ্ড দেন। তবে এটাই যথেষ্ট নয়। এদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইন ১৯৭৪-এর ২৫-গ ধারা প্রয়োগ করা যেতে পারে। এই ধারায় খাদ্যে ভেজাল দেওয়ার জন্য কিংবা মেয়াদোত্তীর্ণ বা ভেজাল খাবার বিক্রয়ের জন্য মৃত্যুদণ্ড বা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে। বাজারের ওপর নজরদারি দৃঢ় করার পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংস্থার মধ্যে সমন্বয় বাড়ানোর সুপারিশও করেছে পবা।

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found
মালদার আমের কদর দেশজোড়া। কিন্তু বিশ্ববাজারে? সেদিকে নজর রেখেই এবার দিল্লির আম উত্সবে যাচ্ছে মালদা আর মুর্শিদাবাদের বাছাই করা আম। শনিবারই দিল্লি পাড়ি দিচ্ছে চব্বিশ মেট্রিক টন আম।  হিমসাগর, গোলাপখাস থেকে ফজলি। মালদার আমের সুখ্যাতি গোটা দেশে। যেমন স্বাদ, তেমনি গন্ধ। ...
আম ও আমজাত পণ্য রপ্তানী বিয়য়ে সেমিনার হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বারের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় রপ্তানীর প্রশিক্ষন কর্মসুচীর আওতায় শনিবার সকালে দিনব্যাপী সেমিনারের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোঃ জাহিদুল ইসলাম। আলোচনার মাধ্যমে আম রপ্তানী ও বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের ...
আমাদের দেশে উৎপাদিত মোট আমের ২০ থেকে ৩০ শতাংশ সংগ্রহোত্তর পর্যায়ে নষ্ট হয়। প্রধানত বোঁটা পচা ও অ্যানথ্রাকনোজ রোগের কারণে আম নষ্ট হয়। আম সংগ্রহকালীন ভাঙা বা কাটা বোঁটা থেকে কষ বেরিয়ে ফলত্বকে দৃষ্টিকটু দাগ পড়ে । ফলত্বকে নানা রকম রোগজীবাণুও লেগে থাকতে পারে এবং লেগে থাকা কষ ...
রাজধানীর মালিবাগের আবদুস সালাম। বয়স ৭২ বছর। তার চার তলার বাড়িতে রয়েছে একটি দুর্লভ ‘ছাদবাগান’। শখের বসে এ বাগান করেছেন। বছরের সব ঋতুতেই পাওয়া যায় নানা ধরনের ফল। এখনো পাকা আম ঝুলে আছে ওই ছাদবাগানে। শুধু আম নয়, ৫ কাঠা ওই বাগানজুড়ে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ফুল, ফলসহ অন্তত ১০০ ...
বলার অপেক্ষা রাখেনা দর্শক নন্দিত ও জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি। প্রতি পর্বে চমক নিয়ে দর্শকের সামনে আসে অনুষ্ঠানটি। স্টুডিওর বাইরে এসে দেশের ঐতিহ্যমণ্ডিত স্থানে ‘ইত্যাদি’র উপস্থাপনা সর্বদাই প্রশংসিত। তারই ধারাবাহিকতায় আগামী ২৯ এপ্রিল প্রচারিতব্য পর্বটি ধারণ করা ...
রীষ্মের এই দিনে অনেকেরই পছন্দ আম।এই আমের আছে আবার বিভিন্ন ধরণের নাম।কত রকমের যে আম আছে এই যেমনঃ ল্যাংড়া,ফজলি,গুটি আম,হিমসাগর,গোপালভোগ,মোহনভোগ,ক্ষীরশাপাত, কাঁচামিঠা কালীভোগ আরও কত কি! কিন্তু এবারে বাজারে এসেছে এক নতুন নামের আর তার নাম 'বঙ্গবন্ধু'। নতুন নামের এই ফলটি দেখা ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২