Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

আম গাছের ছত্রাককে পুঁজি করে রমরমা ব্যবসা

ইসলামপুরের গাইবান্ধা ইউনিয়নের আগুনেরচরে একটি আম গাছের গোড়া থেকে গজিয়ে উঠেছে হাতসদৃশ মসজাতীয় উদ্ভিদ বা ছত্রাক। ওই ছত্রাককে অলৌকিক হাতের উত্থান এবং ওই হাত ভেজানো পানি খেলে যেকোন রোগ ভাল হয় বলে অপপ্রচার করছে স্থানীয় ভ- চক্র। আর ওই ভ-ামির ফাঁদে পা দিয়ে প্রতিদিন প্রতারিত হচ্ছেন শত শত মানুষ।

সরেজমিন ঘুরে জানা গেছে, ইসলামপুরের গাইবান্ধা ইউনিয়নের আগুনেরচর এলাকায় কিতাব আলীর পুকুরপাড়ে কয়েক বছর আগে কেটে ফেলা আম গাছের গোড়ার নিচ থেকে মসজাতীয় দুটি ছত্রাক বেরিয়েছে। ছত্রাক দুটির মধ্যে একটি দেখতে অনেকটা মানুষের হাতের মতো। ওই হাতসদৃশ ছত্রাককে স্থানীয় এক চক্র অলৌকিক হাতের উত্থান বলে অপপ্রচার করছে এবং অলৌকিক ওই হাত ভেজানো পানি খেলে মানুষের রোগ ভাল হয় । তারা হাতসদৃশ ছত্রাকের জায়গাটি মাজারের রূপ দিয়ে সাজিয়ে সেখানে স্থানীয় নাপিতেরচর গ্রামের পলাশ নামের এক অর্ধপাগলকে বসিয়ে তাকে দিয়ে আগন্তুকদের হাতে বোতলভর্তি পানি দিচ্ছে এবং নগদ টাকাপয়সা আদায় করছে। ওই অপপ্রচারে মুগ্ধ হয়ে কুসংস্কারাচ্ছন্ন শত শত মানুষ বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন সেখানে এসে যে যার মতো করে টাকা দান করে বোতল ভরে পানি নিয়ে যাচ্ছে রোগ মুক্তির আশায়। আর কুসংস্কারাচ্ছন্ন ওইসব মানুষের আগমনে জোয়ার তুলতে স্থানীয় চক্র সেখানে কিছু পাগলকে ডেকে এনে গান-বাজনা করাচ্ছে ও গঞ্জিকার আসর বসিয়েছে। এছাড়াও স্থানীয় চক্রটি মৃত আম গাছের গুঁড়িসহ হাতের মতো ছত্রাকটি লাল সালু কাপড় ও রং-বেরঙের জড়ি দিয়ে পেঁচিয়ে সেটিকে জিন্দা পীরের হাতের মাজার বলে অপপ্রচার করছে। এ ঘটনাকে ধর্মপ্রাণ মানুষজন শিরক ও বেদাত বললেও সেখানে উৎসুক দর্শনার্থী ও রোগ মুক্তির আশায় হাতসদৃশ ছত্রাক ভেজানো পানি নেয়া কুসংস্কারাচ্ছন্ন মানুষের ভিড় দিন দিন বাড়ছে।

সংবাদ সম্মেলন নড়াইলে হত্যা মামলা তুলে নিতে হত্যার হুমকি

নিজস্ব সংবাদদাতা, নড়াইল, ৩ অক্টোবর ॥ খড়ড়িয়া গ্রামে জমিজমার বিরোধকে কেন্দ্র করে বিজিবি সদস্য আলী আজগর মিনা হত্যাকা-ের ঘটনায় আসামিরা মামলা তুলে নিতে বাদীপক্ষকে হত্যাসহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিচ্ছে। মামলার প্রধান আসামির আত্মীয় লে. কর্নেল পদমর্যাদার এক ব্যক্তির প্ররোচনায় চার সাদা পোশাকধারী বাদীর বাড়িতে গিয়ে নিহতের স্ত্রীকে মামলা তুলে না নিলে সন্তানসহ পরিবারের সবাইকে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দিয়েছে। সোমবার দুপুরে নড়াইল প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগ করেন নিহতের স্ত্রী নাছিমা খাতুন বুলু এবং নিহতের ভাই মামলার বাদী ইকবাল হোসেন মিনা।

নিহত বিজিবি সদস্য আলী অজগর মিনার স্ত্রী নাছিমা খাতুন বুলু এবং ভাই মামলার বাদী ইকবাল হোসেন মিনা লিখিত অভিযোগে জানান, ১৫ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টার দিকে সাদা পোশাকধারী অপরিচিত চারজন তাদের বাড়িতে এসে মামলা তুলে নেয়ার নির্দেশ দেয় এবং বলে মামলা তুলে না নিলে আজগরের দুই সন্তান আশিক ও ইয়াসিনসহ পরিবারের সবাইকে হত্যা করা হবে। তারা অভিযোগে জানান, মামলার প্রধান আসামি রাজা মোল্যার খড়ড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা লে. কর্নেল পদমর্যাদার মামাত ভাইয়ের প্ররোচনায় এ হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। তাদের অভিযোগ, এই সেনা কর্মকর্তা মামলা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য পুলিশসহ সংশ্লিষ্টদের চাপপ্রয়োগ করে আসছে। এ অবস্থায় দুই শিশুসন্তান নিয়ে আজগরের পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় দিন কাটাচ্ছে। কালিয়া উপজেলার পেড়লি ইউনিয়নের খড়ড়িয়া গ্রামে মিনা ও মোল্যা বংশের মধ্যে জমিজমার বিরোধকে কেন্দ্র করে ৮ সেপ্টেম্বর মোল্যা বংশের লোকেরা আজগরকে তার বাড়ির সামনে প্রকাশ্যে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

অবশেষে শেরপুরে জেল সুপারসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর, ৩ অক্টোবর ॥ জেলা কারাগারে জামিনে মুক্ত আসামির স্বজনদের কাছ থেকে অবৈধভাবে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার প্রতিবাদ করায় কারারক্ষীদের হাতে পরিবহন শ্রমিক নেতা আলমগীর হোসেন বিশুকে নির্যাতনের ঘটনায় আদালতে মামলা হয়েছে। সোমবার দুপুরে আহত শ্রমিক নেতা বিশুর স্ত্রী শান্তি বেগম বাদী হয়ে আদালতে মামলাটি দায়ের করলে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুর রহমান তা গ্রহণ করেন এবং বিকেলে দেয়া আদেশে জখমীর ডাক্তারী সনদপত্র সংগ্রহ সাপেক্ষে ঘটনার বিষয়ে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন। মামলায় জেল সুপার মজিবুর রহমান ও প্রধান কারারক্ষী বাবুল মিয়াসহ ১৭ জনকে আসামি করা হয়েছে।

Comment (0) Hits: 657
 

রাসায়নিক মুক্ত আম চেনার উপায় জেনে নিন

বাজারে চলে এসেছে কাঁচা আম। কিছু দিন পর পাওয়া যাবে রসাল পাকা আম। আর আমের প্রতি সকলের টান স্বাভাবিকভাবেই আছে। কারণ স্বাদের পাশাপাশি আমাদের শরীরের জন্য আমের উপকারিতাও রয়েছে। কিন্তু যুগটা যেহেতু ভেজালের, তাই বাজারের সব আমই যে গাছপাকা, তা কিন্তু নয়। বরং রাসায়নিক পদার্থ দিয়েও পাকানো হচ্ছে আম। ফলে আম যেখানে শরীরের জন্য উপকারী হওয়ার কথা সেখানে ফরমালিন, কার্বাইড মিশ্রিত হওয়ায় তা হয়ে উঠছে শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

আজ আসুন আমরা জেনে নেই রাসায়নিক মুক্ত আম চেনার কিছু সহজ উপায়। শুধু আমের মজা নিলেই হবে না। নিজের ও নিজের পরিবারের স্বাস্থ্যের কথাও চিন্তা করতে হবে।

সুতরাং আম কেনার সময় আপনাকে সচেতন থাকতে হবে যে, তা রাসায়নিক মুক্ত কিনা। কিন্তু কীভাবে বুঝবেন? জেনে নিন কয়েকটি উপায়।

. আমের ওপরে মাছি বসছে কিনা দেখুন। রাসায়নিক থাকলে মাছি বসবে না।

. গাছপাকা আম হলে দেখবেন, আমের গায়ে সাদাটে ভাব থাকে। কিন্তু ফরমালিন বা অন্য রাসায়নিকে চুবানো আম হয় ঝকঝকে সুন্দর ও পরিস্কার।

. গাছপাকা আমের ত্বকে দাগ থাকে। রাসায়নিকে পাকানো আমের গা হয় দাগহীন। কারণ, কাঁচা অবস্থাতেই পেড়ে ওষুধ দিয়ে পাকানো হয়।

. আম মুখে দেয়ার পর যদি দেখেন যে কোনও সৌরভ নেই, কিংবা আমে টক/মিষ্টি কোনও স্বাদই নেই, বুঝবেন যে আমে ওষুধ দেয়া।

. আম কেনা হলে কিছুক্ষণ রেখে দিন। এমন কোথাও রাখুন যেখানে বাতাস চলাচল করে না। গাছ পাকা আম হলে গন্ধে মৌ মৌ করবে চারপাশ। ওষুধ দেয়া আমে এই মিষ্টি গন্ধ হবেই না।

. গাছপাকা আমের গায়ের রঙও আলাদা। গোঁড়ার দিকে একটু গাঢ় রঙ। রাসায়নিক দেওয়া আমের আগাগোড়া হলদে রঙ হয়ে যায়।

. হিমসাগরসহ আরো বেশ কিছু জাতের আম পাকলেও সবুজ থাকে। গাছপাকা হলে এসব আমের ত্বকে বিচ্ছিরি দাগ পড়ে। রাসায়নিক দিয়ে পাকানো হলে আমের ত্বক হয় মসৃণ ও সুন্দর।

. আম কেনার আগে নাকের কাছে নিয়ে ভালো করে শুঁকুন। গাছপাকা আম হলে অবশ্যই বোঁটার কাছে চেনা গন্ধ পাবেন। ওষুধ দেওয়া আমে গন্ধ খুব বেশি থাকে না কিংবা বাজে বা ঝাঁঝালো গন্ধ থাকে।

Comment (0) Hits: 873
 

পাকা আম সংরক্ষণের উপায়

পাকা আমের মধুর রসে মন হারাতে চায় সবার। আবার স্বাদের ভুবনে ভিন্নতাও খোঁজে। এদিকে রসে ভরপুর আমের পুষ্টিগুণ শরীরকে রাখে নানা রোগব্যধি থেকে মুক্ত। রসে ভরা টুসটুসে আমের স্বাদ যতই নিন না কেন, তার প্রতি আগ্রহ কমে না কিছুতেই।    বাড়ির ছোট্ট সোনামনিও আম বা আমের জুস খেতে খুবই পছন্দ করে। তাই অনেক বার চেষ্টা করেছেন ফ্রিজে আম সংরক্ষণের, সেখানে হয়েছেন ব্যর্থ। আস্ত আম রেখে কিছুদিন যেতে না যেতেই খাবারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে সব আম।     এছাড়া পচনশীল হওয়ায় ফ্রিজের বাইরে আম সংরক্ষণের কথা তো ভাবায় যায় না। বাজারে বতলজাত যে আমের জুস পাওয়া যায় তার অধিকাংশই কেমিক্যালযুক্ত ফ্লেভার মাত্র, যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর। তাহলে সারা বছর পাকা আমের আসল স্বাদ নেয়ার উপায় কি? আছে, সামান্য কৌশলেই সারাবছর পেতে পারেন পাকা আমের স্বাদ। আসুন শিখে নেয়া যাক।   * প্রথমে যে পাকা আমগুলো সংরক্ষণ করবেন তা বাছাই করুন। * এবার ভালো করে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে নিন। * বড় একটি পরিষ্কার গামলায় রেখে খোসা ছাড়ানো আম আটি ছাড়িয়ে জুস করে নিতে হবে। * আমের জুস থেকে আটি আলাদা করে পছন্দের বক্স ভরে ডিপ ফ্রিজে রেখে দিন।     * ছোট ছোট পাত্রে এমন পরিমাণ আমের জুস রাখতে হবে যা বের করে একবারে খাওয়া যায়। তাহলে আপনার জন্যই সুবিধা হবে। * এবার সারা বছর থাকুন নিশ্চিন্তে। স্বাদের কোনোরকম পরিবর্তন ছাড়াই সারা বছর পাকা আম খান।   যখনই আম খেতে মন চাইবে তখনই বের করে নিন এক বক্স আম। এবার তা ব্লেন্ডার ব্লেন্ড করে জুস বা মিল্ক শেক তৈরি করে খেতে পারেন।

Comment (0) Hits: 541

আম সংরক্ষণের পদ্ধতি

সঠিক উপায়ে আম সংরক্ষণ না করলে ভালো আম কেনা সত্ত্বেও নিমিষেই নষ্ট হয়ে যেতে পারে আপনার প্রিয় আমগুলো। তাই আসুন, আম সংরক্ষণের সঠিক উপায়গুলো জেনে নেইঃ     ১. আম কেনার পর যত দ্রুত সম্ভব ব্যাগ থেকে বের করে ফেলতে হবে। হোম ডেলিভারী সার্ভিস বা কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে আম আসলে আম হাতে পাবার পরপরই যত দ্রুত সম্ভব বক্স/প্যাকেট থেকে বের করে ফেলতে হবে ।   ২. সরাসরি মেঝেতে না রেখে পরিষ্কার খড়, চটের বস্তা বা পেপার বিছিয়ে তার উপরে আম রাখতে হবে ।   ৩. আম রাখার সময় কোনোভাবেই যেন আমের কোনো অংশে আঘাত না লাগে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। আমের কোন অংশে আঘাত লাগলে সেই অংশ কালো হয়ে পচন ধরে ফলে আঘাতপ্রাপ্ত অংশ খাবার উপযোগী থাকে না ।   ৪. ছায়া যুক্ত স্থানে যেখানে রোদ পরে না এমন স্থানে আম রাখতে হবে ।  ৫.ঘরের স্বাভাবিক তাপমাত্রায় আম সংরক্ষণ করতে হবে।  ৬. ভাল আম পাকার পরে হলুদ রঙ হবে, কখনো সাদা রঙ হবে না ।  ৭. আম পেকেছে কিনা তা জানতে হাতে নিয়ে টিপে দেখা ঠিক না নাকে শুকে পরীক্ষা করতে হয় ।  ৮. ভাল মিষ্টি আম কাচা অবস্থায় খুব বেশি টক থাকে । তাই আম পাকার সঠিক সময়ের আগে খেলে অবশই টক লাগবে ।  ৯. আমের বোঁটার কাছে আমের যে আঠা জমে থাকে তা না ধুয়ে খেলে মুখ চুলকাতে পারে, এমনকি চুলকানোর স্থানে ঘা এর মতো হতে পারে। তবে এটা জটিল কিছু না বরং অল্প কিছুদিনের মধ্যেই সেরে যায়।     ১০। কাঁচা আম রেফ্রিজারেটরে না রাখাই উত্তম। এতে করে আম পাকে না এবং কাঁচা অবস্থাতেই চুপসে যায়। তবে একান্ত কাঁচা আম খেতে চাইলে রাখা যেতে পারে।     ১১। তুলনামূলক পাকা ও নরম আমগুলো বাছাই করে আগে খাওয়া উচিৎ।     ১২। আম বহনের ক্ষেত্রে পলিথিন ব্যবহার করা মোটেই ঠিক নয়।     ১৩। আমের পরিমাণ বেশী হলে বাঁশের ঝুড়িতে আম বহন না করে শক্ত কাগজের কার্টুন, কাঠের বাক্স বা প্ল্যাস্টিকের ক্যারেট-এ বহন করা উচিৎ।     ১৪। দীর্ঘদিন ধরে পাকা আম সংরক্ষণ করতে চাইলে আম কেটে এর খোসা ও আঁটি ছাড়িয়ে বাকি খাদ্যাংশ টুকু ব্লেন্ডার মেশিনে ব্লেন্ড করে একটি বাটিতে রেখে রেফ্রিজাটরে সংরক্ষণ করা যেতে পারে। এভাবে সংগৃহীত আম দীর্ঘদিন ধরে রাখা যায়।

Comment (0) Hits: 1122
মাটি ও আবহাওয়ার কারণে মেহেরপুরের সুস্বাদু হিমসাগর আম এবারও দেশের বাইরে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ) ভুক্ত দেশগুলোতে রফতানি হতে যাচ্ছে।   গত বছর কীটনাশক মুক্ত আম প্রথম বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করার ফলে এ অঞ্চলের আমচাষীদের মধ্যে উৎসাহ দেখা দেয়। গত বছর ১২ মেট্রিক টন আম ইউরোপিয়ান ...
আম ছাড়া মধুমাস যেন চিনি ছাড়া মিষ্টি। বছর ঘুরে এই আমের জন্য অপেক্ষায় থাকে সবাই। রসালো এ ফলের জন্য অবশ্য অপেক্ষার পালা এবার শেষ হয়েছে। রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে বুধবার থেকে শুরু হয়েছে আম পাড়া। এর আগে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞার কারণে আমের রাজধানীতে এতদিন আম পাড়া বন্ধ ছিল। তাইতো ...
চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমবাগানগুলোতে আমের ‘মাছিপোকা’ দমনে কীটনাশক ব্যবহার না করে সেক্স ফেরোমেন ফাঁদ ব্যবহার শুরু হয়েছে। পরিবেশবান্ধব এই ফাঁদকে কোথাও কোথাও ‘জাদুর ফাঁদ’ও বলা হয়ে থাকে। দু-তিন দিকে কাটা-ফাঁকা স্থান দিয়ে মাছিপোকা ঢুকতে পারে, এমন একটি প্লাস্টিকের কনটেইনার বা বোতলের ...
আম রফতানির মাধ্যমে চাষিদের মুনাফা নিশ্চিত করার উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। এজন্য দেশে বাণিজ্যিকভাবে আমের উৎপাদন, কেমিক্যালমুক্ত পরিচর্যা এবং রফতানি বাড়াতে সরকার বিশেষ পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে। সে লক্ষ্যে গাছে মুকুল আসা থেকে শুরু করে ফল পরিপক্বতা অর্জন, আহরণ, গুদামজাত, পরিবহন এবং ...
বলার অপেক্ষা রাখেনা দর্শক নন্দিত ও জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি। প্রতি পর্বে চমক নিয়ে দর্শকের সামনে আসে অনুষ্ঠানটি। স্টুডিওর বাইরে এসে দেশের ঐতিহ্যমণ্ডিত স্থানে ‘ইত্যাদি’র উপস্থাপনা সর্বদাই প্রশংসিত। তারই ধারাবাহিকতায় আগামী ২৯ এপ্রিল প্রচারিতব্য পর্বটি ধারণ করা ...
আম গাছ কে দেশের জাতীয় গাছ হিসেবে ঘোষনা দাওয়া হয়েছে। আর এরই প্রতিবাদে কিছুদিন আগে এক সম্মেলন হয়ে গেলো যেখানে বলা হয়েছে :-"৮৫% মমিন মুসলমানের দেশ বাংলাদেশ। ঈমান আকিদায় দুইন্নার কুন দেশেরথে পিছায় আছি?? আপনেরাই বলেন। অথচ জালিম সরকার ভারতের লগে ষড়যন্ত কইরা আমাগো ঈমানের লুঙ্গি ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২